1. admin@dainikhabigonjeralo.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০২:৪৫ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
আজমিরীগঞ্জে জনসাধারণের নিরাপত্তার জন্য মাঠে নামছে উপজেলা প্রশাসন পবিত্র মাহে রমজান ও নববর্ষ উপলক্ষে দৈনিক হবিগঞ্জের আলো পত্রিকা পরিবারের পক্ষ থেকে দেশবাসী সহ সকল প্রতিনিধি, পাঠক ও কলাকৌশলীদেরকে শুভেচ্ছা পবিত্র মাহে রমজান ও বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন দৈনিক হবিগঞ্জের আলো পত্রিকার প্রধান সম্পাদ ও এইচ বাংলা টিভির চেয়ারম্যান এবং ইউনাইটেড জার্নালিস্ট সোসাইটি অব বাংলাদেশ এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান সাংবাদিক আব্দুল্লাহ আল নোমান পবিত্র মাহে রমজান ও বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন’ সাবেক ছাত্রনেতা মাসুদ দুলাল ২কেজি ৫০০গ্রাম গাঁজা ও নগদ ৬৯হাজার ৬শত ৩০টাকা সহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার বগুড়ার আদমদীঘি ও সান্তাহারে মাদকবিরোধী অভিযানে ৭ মাদকসেবীকে আটক চুনারুঘাটে শ্রীশ্রী গীতা পাঠ ও ধর্মীয় আলোচনা সভা ৫৩৪টি পরিবারের মাঝে দুই দিন যাবৎ সেহরী ও ইফতারের সামগ্রী বিতরণ নবীগঞ্জে রমজানের উপহার সামগ্রী বিতরণ নাটোরের বড়াইগ্রামে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে তিনটি দোকানে অগ্নিকান্ড \ কোটি টাকার ক্ষতির দাবী

টঙ্গীতে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে আলোচনা সভা ও কেক কেটে মিষ্টি বিতরণ

রিপোর্টারের নাম
  • প্রকাশিত : রবিবার, ৭ মার্চ, ২০২১
  • ৫৪ বার পড়া হয়েছে

মোঃ নুরুজ্জামান শেখ টঙ্গী ষ্টাফ রিপোর্টার :

টঙ্গীতে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে টঙ্গীর সফিউদ্দিন সরকার একাডেমী এন্ড কলেজ, টঙ্গী পাইলট স্কুল এন্ড গার্লস কলেজ, সিরাজউদ্দিন সরকার বিদ্যানিকেতন এন্ড কলেজ, টঙ্গী পশ্চিম থানা, টঙ্গী পূর্ব থানা, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন টঙ্গী অঞ্চল ব্যাপক আয়োজন করেছে। গতকাল রোববার টঙ্গী পশ্চিম থানা অফিসার ইনচার্জ মো: শাহ আলমের সভাপতিত্বে এবং এসআই নজমুল হুদার পরিচালনায় আলোচনা সভা কেক কাটা ও মিষ্টি বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন গাজীপুর মেট্রোপলিটন উপ-পুলিশ কমিশনার মিজানুর রহমান পিপিএম, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৫৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ¦ নাসির উদ্দিন মোল্লা, টঙ্গী পশ্চিম থানা যুবলীগ নেতা বিল্লাল হোসেন মোল্লা, বিশিষ্ট শিল্পপতি শামীম ইসতিয়াক, টঙ্গী প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মাহফুজুর রহমান, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর নাসরিন আক্তার শিরিন, টঙ্গী সরকারি বিশ^বিদ্যালয় কলেজ ভাইস প্রিন্সিপাল প্রফেসর ড. সুফিয়া বেগম, ইসলামীক ইস্ট্রাডিজের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর আবুল কালাম আজাদ, টঙ্গী সরকারি বিশ^বিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি কাজী মঞ্জুর, আঁধারের আলো ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান যুবলীগ নেতা আক্তার সরকার প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা বলেন, আজ ঐতিহাসিক ৭ মার্চ। বাঙালি জাতির দীর্ঘ স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে এক অনন্য দিন। ১৯৭১ সালের এই দিনে ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) এক বিশাল জনসমুদ্রে দাঁড়িয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ডাক দেন।
এ দিন লাখ লাখ মুক্তিকামী মানুষের উপস্থিতিতে এই মহান নেতা বজ্রকণ্ঠে ঘোষণা করেন, ‘রক্ত যখন দিয়েছি রক্ত আরও দেব, এ দেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়ব ইনশাআল্লাহ। এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম, জয় বাংলা।’
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একাত্তরের ৭ মার্চ দেয়া ঐতিহাসিক ভাষণ পরবর্তীতে স্বাধীনতার সংগ্রামের বীজমন্ত্র হয়ে পড়ে। একইভাবে এ ভাষণ শুধু রাজনৈতিক দলিলই নয়, জাতির সাংস্কৃতিক পরিচয় বিধানের একটি সম্ভাবনাও তৈরি করে। বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণকে ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি দেয় জাতিসংঘের শিক্ষা বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো।
একাত্তরের ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর এই উদ্দীপ্ত ঘোষণায় বাঙালি জাতি পেয়ে যায় স্বাধীনতার দিকনির্দেশনা। এরপরই দেশের মুক্তিকামী মানুষ ঘরে ঘরে চূড়ান্ত লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিতে শুরু করে। বঙ্গবন্ধুর এই বজ্রনিনাদে আসন্ন মহামুক্তির আনন্দে বাঙালি জাতি উজ্জীবিত হয়ে ওঠে। যুগ যুগ ধরে শোষিত-বঞ্চিত বাঙালি ইস্পাত কঠিন দৃঢ়তা নিয়ে এগিয়ে যায় কাক্সিক্ষত মুক্তির লক্ষ্যে।
ধর্মীয় চিন্তা, সাম্প্রদায়িকতার মানসিকতা ও দ্বি-জাতিতত্ত্বের ভিত্তিতে ১৯৪৭ সালে গঠিত পাকিস্তান রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ২৩ বছরের আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্যদিয়ে বাঙালি জাতিসত্তা, জাতীয়তাবোধ ও জাতিরাষ্ট্র গঠনের যে ভিত রচিত হয় তারই চূড়ান্ত পর্যায়ে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের পর ছাত্র-কৃষক-শ্রমিকসহ সর্বস্তরের বাঙালি স্বাধীনতা অর্জনের জন্য মুক্তিযুদ্ধের প্রস্তুতি গ্রহণ করে।
বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে ৯ মাসের সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ী হয়ে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয় ছিনিয়ে আনে বাঙালি জাতি। এই বিজয়ের মধ্য দিয়ে বিশ্ব মানচিত্রে জন্ম নেয় স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ।
ঐতিহাসিক ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর ভাষণে গর্জে ওঠে উত্তাল জনসমুদ্র। লাখ লাখ মানুষের গগনবিদারী শ্লোগানের উদ্দামতায় বসন্তের মাতাল হাওয়ায় সেদিন পতপত করে ওড়ে বাংলাদেশের মানচিত্র খচিত লাল-সবুজের পতাকা। শপথের লক্ষ বজ্রমুষ্টি উত্থিত হয় আকাশে। সেদিন বঙ্গবন্ধু মঞ্চে আরোহণ করেন বিকেল ৩টা ২০ মিনিটে। ফাগুনের সূর্য তখনো মাথার ওপর। মঞ্চে আসার পর তিনি জনতার উদ্দেশ্যে হাত নাড়েন।
তখন পুরো সোহরাওয়ার্দী উদ্যান লাখ লাখ বাঙালির ‘তোমার দেশ আমার দেশ বাংলাদেশ বাংলাদেশ, তোমার নেতা আমার নেতা শেখ মুজিব, শেখ মুজিব’ শ্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে। তিনি দরাজ গলায় তার ভাষণ শুরু করেন, ‘ভাইয়েরা আমার, আজ দুঃখ-ভারাক্রান্ত মন নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হয়েছিৃ।’ এরপর জনসমুদ্রে দাঁড়িয়ে বাংলা ও বাঙালির স্বাধীনতার মহাকাব্যের কবি ঘোষণা করেন- ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রামৃ, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম, জয় বাংলা।’ মাত্র ১৮-১৯ মিনিটের ভাষণ। এই স্বল্প সময়ে তিনি ইতিহাসের পুরো ক্যানভাসই তুলে ধরেন। তিনি তার ভাষণে সামরিক আইন প্রত্যাহার, জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর, গোলাগুলি ও হত্যা বন্ধ করে সেনাবাহিনীকে ব্যারাকে ফিরিয়ে নেয়া এবং বিভিন্ন স্থানের হত্যাকান্ডের তদন্তে বিচারবিভাগীয় কমিশন গঠনের দাবি জানান।
#
টঙ্গী থেকে মোঃ নুরুজ্জামান শেখ
তারিখ: ০৭-০৩-২০২১
০১৯২১০৫৭১০৪

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত